Full Occupancy Theatre Allowed Centre Allows Cinema Halls February 1 Issues New Guidelines


নয়াদিল্লি: করোনা আবহে এতদিন সিনেমা হল ও মাল্টিপ্লেক্সগুলিতে যত দর্শক আসন আছে, তার মাত্র ৫০ শতাংশে দর্শকদের বসার অনুমতি ছিল। তবে কাল থেকে এই নিয়ম বদলে যাচ্ছে। সিনেমা হল ও মাল্টিপ্লেক্সগুলিতে ১০০ শতাংশ আসনেই দর্শকদের বসার অনুমতি দেওয়া হচ্ছে। এ বিষয়ে নতুন নির্দেশিকা জারি করেছে কেন্দ্রীয় সরকার।


কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর ট্যুইট করে জানিয়েছেন, ‘চলচ্চিত্রপ্রেমীদের জন্য সুখবর। চলচ্চিত্র প্রদর্শনের ক্ষেত্রে সংশোধিত এসওপি জারি করা হয়েছে। ১ ফেব্রুয়ারি থেকে সিনেমা হলগুলিতে ১০০ শতাংশ দর্শককে বসার অনুমতি দেওয়া হচ্ছে। তবে স্বাস্থ্যমন্ত্রক করোনাবিধি সংক্রান্ত যে নির্দেশিকা জারি করেছে, তা মেনে চলতে হবে।’


পাবলিশার্স গিল্ডের পক্ষ থেকে এই ঘোষণায় সন্তোষ প্রকাশ করে বলা হয়েছে, ‘তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রক ১ ফেব্রুয়ারি থেকে সিনেমা হলগুলিতে ১০০ শতাংশ দর্শককে বসতে দেওয়ার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তাকে আমরা স্বাগত জানাচ্ছি। মাননীয় প্রকাশ জাভড়েকরজির প্রতি আমরা কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। চলচ্চিত্র শিল্পের ঘুরে দাঁড়ানোর ক্ষেত্রে যাঁরা এই গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ নিয়েছেন, তাঁদের সবাইকে ধন্যবাদ জানাই।’

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রকের পক্ষ থেকে জারি করা নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, ‘দর্শকদের মাস্ক পরে থাকতে হবে, দর্শকদের শরীরের তাপমাত্রা পরীক্ষা করতে হবে। সব সিনেমা হলে থার্মাল স্ক্রিনিং বাধ্যতামূলক। প্রতিটি শোয়ের সময় আলাদা রাখতে হবে এবং আসনও আলাদা রাখতে হবে। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে এবং হ্যান্ড স্যানিটাইজার রাখতে হবে। থুতু ফেলা নিষিদ্ধ। টিকিট কাটার সময় সব দর্শককেই ফোন নম্বর দিতে হবে। এলিভেটরে দর্শকদের প্রবেশ সীমাবদ্ধ রাখতে হবে। সিনেমা হল থেকে দর্শকদের একসঙ্গে বেরনোর ক্ষেত্রেও বিধিনিষেধ জারি করা হচ্ছে। বেরনোর সময় ভিড় যাতে না হয়, সেটা দেখতে হবে। ডিজিট্যাল লেনদেনে উৎসাহ দিতে হবে। প্রতিটি শোয়ের পর হল স্যানিটাইজ করতে হবে। হলের বাইরেও নিয়মিত স্যানিটাইজেশন দরকার। যে কর্মীরা স্যানিটাইজেশন করবেন, তাঁদের পিপিই কিট পরে থাকতে হবে। কনটেইনমেন্ট জোনে থাকা সিনেমা হলগুলিতে অবশ্য কোনও শো হবে না।’

গত বছরের অক্টোবরে কেন্দ্রীয় সরকার সিনেমা হল ও মাল্টিপ্লেক্সগুলিতে ৫০ শতাংশ দর্শককে বসার অনুমতি দিয়েছিল। এবার সেই নির্দেশিকা বদল করা হল। গত বছর করোনা আবহে প্রায় সাত মাস বন্ধ ছিল সিনেমা হলগুলি। তবে সিনেমা হল ও মাল্টিপ্লেক্সগুলি খোলার পরেও যথেষ্ট দর্শক হচ্ছিল না। ফলে খুব কম সিনেমাই নতুন করে হলে মুক্তি পেয়েছে। দর্শকের অভাবে অনেক সিনেমা হলই বন্ধ হয়ে গিয়েছে। তবে এবার ফের দর্শকরা হলমুখী হবেন বলে আশা করছেন চলচ্চিত্রের সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিরা।

রণবীর সিংহ, দীপিকা পাড়ুকোনের ছবি ‘৮৩’, অক্ষয় কুমার, অজয় দেবগনের ‘সূর্যবংশী’, সলমন খানের ‘রাধে’ মুক্তির অপেক্ষায়। এবার এই ছবিগুলি হলে মুক্তি পেতে পারে।

Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *