Sourav Dona Marriage Anniversary: সৌরভের সঙ্গে বিয়ের ২৪ বছর পূর্ণ, দার্জিলিংয়ে কাটাতে হল ডোনাকে

কলকাতা: দেখতে দেখতে ২৪ বছর পার। ২১ ফেব্রুয়ারি। ১৯৯৭ সালের এই দিনেই শুরু হয়েছিল একসঙ্গে পথ চলা। বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ও ডোনা। যাঁদের প্রেম ও বিয়ে যেন ছিল রূপকথার মতো।

রবিবার ছিল সৌরভ-ডোনার বিবাহবার্ষিকী। ২৪তম বছর পার করে ফেলল বেহালার বীরেন রায় রোডের বিখ্যাত জুটির দাম্পত্য। আর বিবাববার্ষিকীতেই কি না একসঙ্গে কাটানো হল না তাঁদের!

কিন্তু কেন? কারণ, ডোনা কলকাতার বাইরে। বিখ্যাত ওড়িশি নৃত্যশিল্পীর নাচের স্কুল দীক্ষামঞ্জরীর অনুষ্ঠান রয়েছে শৈলশহরে। এবিপি আনন্দকে ডোনা বললেন, ‘আমি দার্জিলিংয়ে রয়েছি। নাচের প্রোগ্রাম আছে।’ সৌরভ কলকাতায়। শারীরিক অসুস্থতার পর তিনি এখনও বাইরে বেরচ্ছেন না। তবে বাড়ি এবং সংলগ্ন অফিস থেকে কাজ শুরু করে দিয়েছেন।

তবে বিবাহবার্ষিকী একেবারে সাদামাটা কাটবে, তা আবার হয় নাকি! সৌরভ-ডোনার জন্য দিনটিকে আরও স্পেশ্যাল করে তুলেছেন কন্যা সানা। কীভাবে? বাবা-মাকে লাল গোলাপের তৈরি বিশালাকার একটি বোকে উপহার দিয়েছেন সানা। যে উপহার পেয়ে উচ্ছ্বসিত সৌরভ ও ডোনা, দুজনই।

তবে ২০১৩ সাল থেকে বিবাহবার্ষিকী সেলিব্রেট করেন না সৌরভ ও ডোনা। কেন? ডোনা বললেন, ‘২০১৩ সালে ২১ ফেব্রুয়ারিই সৌরভের বাবা মারা গিয়েছিলেন। তারপর থেকে আর বিবাহবার্ষিকী সেলিব্রেট করি না আমরা।’

সম্প্রতি হার্টে তিনটি স্টেন্ট বসেছে জাতীয় দলের প্রাক্তন অধিনায়কের। দু’দফায় তিনটি স্টেন্ট বসেছে সৌরভের। আপাতত বাড়িতেই রয়েছেন চিকিৎসকদের পর্যবেক্ষণে। বিখ্যাত হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ দেবী শেঠি ও অশ্বিন মেহতা নিয়মিত ফোন করে খোঁজ নিচ্ছেন সৌরভের। তাঁর ব্যক্তিগত চিকিৎসক সপ্তর্ষি বসু নিয়মিত তাঁর শারীরিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করছেন। আপাতত কড়া ডায়েট মেনে চলতে হচ্ছে দাদাকে। বাইরের খাবার, তেল-মশলাযুক্ত রান্না বন্ধ। বেহালার বীরেন রায় রোডে নিজের বাড়ির পাশেই সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের নিজস্ব অফিস। সোমবার থেকে সেখানে যাচ্ছেন তিনি। সামলাচ্ছেন বিভিন্ন দায়িত্বও। অসুস্থতার পর সরস্বতী পুজোর দিন বেশ খোশমেজাজে দেখা গিয়েছিল সৌরভকে। স্ত্রী ডোনার নাচের স্কুল দীক্ষামঞ্জরীর পুজোয় মেয়ে সানা ও পরিবারের বাকিদের সঙ্গে সময় কাটান তিনি।

মোতেরায় বুধবার থেকে শুরু হচ্ছে ভারত-ইংল্যান্ডের তৃতীয় টেস্ট। সেই ম্যাচের জন্য আমদাবাদে যাওয়ার কথা ছিল সৌরভের। তবে তাঁর চিকিৎসকেরা আরও কয়েকদিন বিশ্রামে কাটাতে বলেছেন। আপাতত বাড়ি থেকে টেলি ও ভিডিও কনফারেন্সেই বোর্ডের গুরুত্বপূর্ণ কাজ সামলাচ্ছেন বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট।

Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *