2021 ICC Men’s T20 World Cup: ভারতে টি-২০ বিশ্বকাপের জন্য ভিসার বিষয়ে আশ্বাস দিতে হবে, দাবি পিসিবি-র

নয়াদিল্লি: এ বছরের অক্টোবর-নভেম্বরে ভারতে পুরুষদের টি-২০ বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। কিন্তু পাকিস্তানের আপত্তির জেরে এই প্রতিযোগিতা ভারতে হওয়া নিয়ে জটিলতা তৈরি হচ্ছে। পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের দাবি, তাদের ক্রিকেটার, সাংবাদিক ও সমর্থকদের ভিসার বিষয়ে আগামী মাসের মধ্যেই বিসিসিআই-কে লিখিত প্রতিশ্রুতি দিতে হবে। যদি বিসিসিআই এই প্রতিশ্রুতি না দেয়, তাহলে পুরুষদের টি-২০ বিশ্বকাপ অন্য কোনও দেশে সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার দাবি তুলবে বলে হুঁশিয়ারিও দিয়েছে পিসিবি।

এ প্রসঙ্গে পিসিবি চেয়ারম্যান এহসান মানি বলেছেন, ‘আমরা আইসিসি-কে জানিয়েছি, মার্চের মধ্যেই বিসিসিআই-কে ভিসার বিষয়ে লিখিত প্রতিশ্রুতি দিতে হবে। আমরা শুধু ক্রিকেটারদের জন্যই নয়, সমর্থক, কর্তা এবং সাংবাদিকদের জন্যও ভিসা চাইছি। মার্চের মধ্যেই আমরা এ বিষয়ে ভারতের অবস্থান জানতে চাইছি। বিসিসিআই যদি ভিসার বিষয়ে লিখিত প্রতিশ্রুতি না দেয়, তাহলে আমরা টি-২০ বিশ্বকাপ ভারত থেকে সংযুক্ত আরব আমিরশাহীতে সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার দাবি জানাব।’

পিসিবি চেয়ারম্যান আরও বলেছেন, ‘আমাদের জাতীয় দলের নিরাপত্তার বিষয়েও নিশ্চিত হতে চাইছি। দুই দেশের বর্তমান সম্পর্কের পরিপ্রেক্ষিতে নিরাপত্তার বিষয়ে আশ্বস্ত হওয়া প্রয়োজন।’

গত বছর অস্ট্রেলিয়ায় টি-২০ বিশ্বকাপ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু করোনা আবহে সেই প্রতিযোগিতা স্থগিত হয়ে যায়। আইসিসি-র পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, এবার ভারতে হওয়ার পর আগামী বছর অস্ট্রেলিয়ায় হবে পুরুষদের টি-২০ বিশ্বকাপ। কিন্তু ভারতে টি-২০ বিশ্বকাপ নিয়ে শুরু থেকেই আপত্তির কথা জানিয়ে আসছে পাকিস্তান। গত অক্টোবরে পিসিবি-র চিফ এগজিকিউটিভ ওয়াসিম খান বলেন, পাকিস্তানের ক্রিকেটারদের ভিসা পাওয়া নিয়ে সমস্যা হতে পারে। তাই এ বিষয়ে আইসিসি-কে আশ্বাস দিতে হবে।

বিসিসিআই-এর পক্ষ থেকে পাল্টা বলা হয়েছে, পিসিবি-র চিফ এগজিকিউটিভ কিছু না জেনেই এই ধরনের মন্তব্য করছেন। ২০১৯ সালেই ভারত সরকার ভিসার বিষয়ে অবস্থান স্পষ্ট করে দিয়েছে। ফলে পাকিস্তানের পক্ষ থেকে অকারণে জলঘোলা করা হচ্ছে।

২০১৯-এর ১৪ ফেব্রুয়ারি পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলার পর ভারত-পাক সম্পর্কের অবনতি হয়েছে। ২০১৯-এ নয়াদিল্লিতে ইন্টারন্যাশনাল শুটিং স্পোর্টস ফেডারেশন ওয়ার্ল্ড কাপের জন্য দুই পাক শুটারকে ভিসা দেওয়া হয়নি। এর জেরে ভারতে আর কোনও বড়মাপের প্রতিযোগিতা হবে না বলে জানিয়ে দেয় ইন্টারন্যাশনাল অলিম্পিক কমিটি। পরে অবশ্য সেই নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হয়। এরপরেই তৎকালীন ক্রীড়াসচিব রাধেশ্যাম জুলানিয়া জানান, কোনও ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় যোগ দেওয়ার জন্য পাকিস্তান সহ সব দেশের ক্রীড়াবিদদেরই ভিসা দেওয়া হবে। সে কথা উল্লেখ করেই পিসিবি-র সমালোচনা করেছে বিসিসিআই।

Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *