Women’s Day 2021: নারী দিবসে নতুন প্রজন্মকে কী বার্তা দিলেন ঋতুপর্ণা-অর্পিতা?

সোভিয়েতে যে শ্রমের সমমূল্যর অধিকারের লড়াই শুরু হয়েছিল তার স্বীকৃতি পাওয়া গেলেও  গোটা পৃথিবীতে  আজও বিনোদন দুনিয়ায় বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই নায়িকার পারিশ্রমিক নায়কের থেকে কম। ব্যতিক্রম আছে। সেইরকম ব্যতিক্রমী ৩ জন নায়িকা এবিপি আনন্দ-র সঙ্গে ভাগ করে নিলেন তাঁদের  শৈশবে কি শুনতে হয়েছিল, আজ মা হিসাবে সন্তানদের কি শেখাচ্ছেন। একজন প্রতিষ্ঠিত পেশাদার হিসাবেই বা কি বার্তা দিতে চাইছেন নতুন প্রজন্মকে?

মা-বাবার একমাত্র সন্তান অর্পিতার বেড়ে ওঠা এমন নারীদের মধ্যে যাঁরা তাঁকে প্রতিবাদী, স্বাধীনচেতা আর স্বাবলম্বী হতে শিখিয়েছেন। অর্পিতার কাছে অর্থনৈতিক স্বাধীনতা থেকে একমাত্র পুত্রকে লিঙ্গ-সাম্যর পাঠ দেওয়া দুই সমান গুরুত্বপূর্ণ।

ঋতুপর্ণা অর্থনেতিক স্বাধীনতা অর্জন করেছেন আঠেরো পেরোনোর পর থেকেই। পরিশ্রম ও অধ্যবসায়কে হাতিয়ার করে সফলও হয়েছেন। সেই ঋতুপর্ণার শৈশবে ফেলে আসা লিঙ্গ বৈষম্যের ক্ষত আজও রয়েছে মনে। ভারতীয় সমাজবিন্যাসে আজও একজন মহিলাকে ঘর আর বাইরে ব্যালেন্স করতে হলেও অর্থনৈতিক স্বাধীনতা প্রত্যেক মেয়ের জন্য জরুরি, বললেন অভিনেতা। পুত্রকে কি শেখাচ্ছেন মা, জানালেন তাও।

তনুশ্রী চক্রবর্তীকে বহু না শুনে বড় হতে হয়েছে। সেই সমস্ত না, কে হ্যাঁ করার জেদই তাঁকে শিখিয়েছে কোনও আপস না করে, নিজের লক্ষে স্থির থাকলে সাফল্য আসবেই। মহিলাদের বাসে-ট্রেনে  কোনওরকম সংরক্ষণের দরকার নেই। অবলা নয়, শক্তিই সম্পদ নারীদের।

 

Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *